মরমী সাধক সহস্রাধিক গানের রচয়িতা পল্লি কবি রমিজ আলী। ——————————————

প্রকাশিত: ৮:২২ অপরাহ্ণ, জুলাই ৭, ২০২০

মরমী সাধক সহস্রাধিক গানের রচয়িতা পল্লি কবি রমিজ আলী। ——————————————

স্টাফ রির্পোটার. রফিকুল ইসলাম মামুন।

এই শ্যামল সবুজে আচ্ছাদিত বাংলার পল্লি মায়ের কুলে জন্ম নিয়েছেন অসংখ্য বাউল সাধক জ্ঞানি গুণিজন, তাদেরই একজন যাকে নিয়ে আজ লিখতে যাচ্ছি ফকির দূর্বিনশাহ এর প্রথম শ্রেনীর শিষ্যতা লাভকারী।
সুনামগঞ্জ জেলার ছাতক উপজেলার নোয়ারাই ইউনিয়নের ছনখাইড় গ্রামের মরহুম ফুরকান উল্লাহর সুযোগ্য সন্তান, মরমী সাধক, পল্লি কবি, সহস্রাধিক গানের রচয়িতা মরহুম রমিজ আলী।
সহস্রাধিক গানের রচয়িতা এই অসাধারণ মানুষটি সাদাসিধে জীবনের অধিকারি ছিলেন তার জ্ঞানের খবর কেউ জানেনি, অনেকে তাকে পুরোপুরি চিনতে পারেনি।
তার গানের অসংখ্য কলির মধ্যে একটি কলি হচ্ছে “দেখছি শুনছি কত মরা গাঙ্গেয়ে বাইশা গেছে” আজ যেন এই কথাটি পূর্ণতা পেলো, চারিদিকে বন্যায় প্লাবিত মানুষের হাহাকার, কত লাশ ভেসে যাচ্ছে স্রোতের প্রবল বেগে কখন যেন কার কি হয়, সেই দুশ্চিন্তায় রয়েছে সবাই। মৃত্যুকালে তার বয়স ছিল ৯০বছর, তিনি স্ত্রী, ৬পুত্র, ২কন্যা, নাতি-নাতনীসহ অসংখ্য গুনগ্রাহী ও ভক্ত-শ্রোতা রেখে গেছেন। রমিজ আলীর রচিত বহু গান দূর্বিণশাহ নিজ কণ্ঠে গেয়েছেন। এক’দমের ভরসা নাই, কিসের জিন্দেগী আল্লাহ পরওয়ার–, একবার দাড়াও বন্ধু, বহুদিনে পাইছি তোমার লাগ–, বন্ধু বাহির হইয়া দেখরে দোয়ারে ভিখারি খাড়া, পেটের ফকির নয়তো আমি ভিক্ষা নেব তোরা–, রাইয়ের বাসনা পুরাইতেরে রসবন্ধু কুঞ্জ বনে, কি ধন লইয়া আইছ ভবে কি দিবে তুলনে–, এমন অসংখ্য বিখ্যাত গানের রচয়িতা পল্লীকবি রমিজ আলী। ইতিমধ্যে তার লেখা সহস্রাধিক গান ৪টি খন্ডে রমিজ গীতি নামে প্রকাশিত হয়েছে। এছাড়া অসংখ্য কবিতাও রচনা করেছেন মরমী সাধক রমিজ আলী।
তিনি যুগের পর যুগ বেঁচে থাকবেন তারই নিজ গুণে ধরণীর পথে, তার গানের ভিতরে স্রষ্টাতত্ত্ব, দেহতত্ত্ব, ফুটে উঠেছে, এভাবে মরমী সাধকদের জন্ম হোক বাংলার প্রতিটি জনপদে।
মহান আল্লাহ সুবহানাহু তায়ালা তারই গোলামের ইহকালিন জিন্দেগির ত্রুটিবিচ্যুতিকে ক্ষমা করে দিয়ে জান্নাতুল ফেরদাউস নসিব করুন, আমিন।
তারিখ. ০৮.০৭.২০২০ ইংরেজি।

এই সংবাদটি 458 বার পঠিত হয়েছে