এমন চান্স মিস করতে চাই না!

প্রকাশিত: ৬:১০ অপরাহ্ণ, জুন ১৪, ২০২০

এমন চান্স মিস করতে চাই না!

 

এখন বর্ষাকাল চতুর্দিকে পানি আর পানি,মাঠ খাল বিল পানিতে মিলেমিশে একাকার। এ সুযোগ কাজে লাগিয়ে আমরা পূণ্যের একাউন্ট সমৃদ্ধ করতে পারি! সহজ একটি কাজে অনেক পূণ্যের হাতছানি।

আমরা বাঙালি-মাছ ছাড়া যেন নিজেদের বাঙালি কল্পনাও করা যায় না! আমাদের প্রধান খাদ্য ভাত, আর সবচেয়ে প্রিয় খাবার হলো মাছ। অতএব এই বর্ষাকালে- মাছের পোনা অবমুক্তকরণ করার মধ্য দিয়ে অসংখ্য অগণিত মানুষকে খাবার খাওয়ানোর মত সওয়াব অর্জনের সুযোগ আমাদের দুয়ারে কড়া নাড়ছে।

হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর (রা.) হতে বর্ণিত। তিনি বলেন, এক ব্যক্তি রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম- এর কাছে আরজ করল, ইসলামে কোন অভ্যাসটি উত্তম? রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বললেন, অপরকে খানা খাওয়াবে এবং পরিচিত- অপরিচিত সবাইকে সালাম দিবে” [বুখারী ও মুসলিম]

আল্লাহু আকবার! অপরকে খানা খাওয়ানো ইসলামের উত্তম কাজ সমূহের অন্যতম একটি কাজ। তবে আমাদের দেশের সিংহভাগ মানুষেরই একসাথে শতশত কিংবা হাজারো মানুষকে খানা খাওয়ানোর মত অ্যাবি’লিটি নেই!

তবে এই সহজ কৌশল অর্থাৎ মাছের পোনা (অল্প টাকায়) কিনে অবমুক্তকরণ করার মাধ্যমে আমরা শতশত/হাজারো মানুষকে খানা খাওয়াতে পারি। আমরা যেই পোনাগুলো অবমুক্ত করব সেগুলো একসময় এক বিল হতে অন্য বিলে, এক নদী থেকে অন্য নদীতে ছড়িয়ে পরবে।

বিভিন্ন এলাকার মানুষ তা ধরে খাবে-আর অটোমেটিকলি আমাদের একাউন্টে পূণ্য জমা হতে থাকবে! এমনকি জেলেরা এই মাছ ধরে বিক্রি করলেও আমরা সওয়াব পাব- কেননা সে মূলত আমাদের মাছগুলোই বিক্রি করছে। এটা এমন ইনভেস্টমেন্ট যেখানে লাভ ছাড়া ক্ষতির কোন সম্ভাবনা পর্যন্ত নেই!

আর হয়ত বা আমরা এক কালে থাকব না এ ধরায়-আমাদের আমলের দরজা বন্ধ হয়ে যাবে। কিন্তু সেই মাছগুলো বংশবিস্তার করবে- আর প্রজন্মের পর প্রজন্ম তা খাবে। আর এভাবে তা আমাদের জন্য অনন্তকাল পর্যন্ত সদকায়ে জারিয়া হিশেবে কাজ করবে ইনশাআল্লাহ। অতএব এমন চান্স মিস করতে চাই না।

আমির হোসাইন নাঈম
ইসলামী লেখক: বাংলার বারুদ ২৪
তারিখ: ১৪/০৬/২০২০

এই সংবাদটি 17323 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ