দোয়ারা বাজারে সংঘর্ষে মহিলা ইউপি সদস্যসহ গুরুতর আহত দুই

প্রকাশিত: ১:২৭ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ৭, ২০২১

দোয়ারা বাজারে সংঘর্ষে মহিলা ইউপি সদস্যসহ গুরুতর আহত দুই

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ সুনামগঞ্জের দোয়ারা বাজার উপজেলার পান্ডার গাও ইউনিয়নে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ইউনিয়ন পরিষদের সংরক্ষিত ৪,৫,ও ৬ নং ওয়ার্ড এর মহিলা সদস্য রেজিয়া বেগম(৪৫) ও তার ভাই রজব আলী (৬০) এর উপর হামলা চালিয়েছে একদল সন্ত্রাসী চক্র ও ভূমিখেো। গুরতর আহত রেজিয়া বেগম ও তার ভাই বর্তমানে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন।

সরেজমিনে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে গিয়ে জানা যায় যে, গত ৬/২/২০২১ ইং দোয়ারা বাজার উপজেলাধীন আফসর নগরের দোহালিয়া এলাকায় ঘটে মারামারির এ করুন ঘটনা। জমিজমা নিয়ে পূর্ব থেকেই বিরোধ ছিল একই শফিক উদ্দিন এর নেতৃত্বে তার ছেলে মর্তুজ আলী, মতছির আলী ও চমক আলী সহ অঞ্জাতনামা কতিপয় লোকজন আক্রমণ চালায় রজব আলী ও তার বোন ৫ নং পান্ডার গাও ইউপির মহিলা সদস্য মোছাঃ রেজিয়া বেগম এর উপর। গুরতর আহত রজব আলী এ প্রতিবেদককে জানান যে,আফসর নগরে আমার পিতা মরহুম হাজি দানিছ উল্লাহ এর মৌরসি জমির ওপর উল্লেখিত সন্ত্রাসী চক্র ভোগ দখলের জন্য দীর্ঘ দিন ধরে পায়তারা চালিয়ে যাচ্ছে এবং সহযোগিতা কামনা করে আমি স্থানীয় দোয়ারা বাজার থানা পুলিশকেও বিষয়টি অবগত করি। ঘটনার সময় পুলিশ আসার পূর্বেই তারা আমি ও আমার বোন ইউপি সদস্য রেজিয়া বেগম এর উপর অকারণে অতর্কিত হামলা চালায়। আমার বুকে রামদা দিয়ে কুপিয়ে মারাত্মক জখম করে এবং রেজিয়া বেগম এর মাথা, পেট,বুক ও চোখে গুরতর জখম রয়েছে। হামলাকারীরা আমাদের মৃত ভেবে ফেলে চলে যায় এবং পরে দোয়ারা বাজার থানা পুলিশ অফিসার আনছার আলী সঙ্গীয় ফোর্সসহ আমাদের উদ্ধার করেন।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে দোয়ারা বাজার থানার অসি মোবাইল ফোনে জাতীয় সাপ্তাহিক অভিযোগ পত্রিকাকে জানান যে, পান্ডার গাও ইউনিয়নের আফসর নগরে মারামারি হয়েছে এবং ঘটনাস্থল থেকে মারামারিতে ব্যবহৃত রামদা,সুলফি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে, আহত পক্ষের যে কেহ থানায় এসে অভিযোগ করলে সাথে সাথেই প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

এই সংবাদটি 493 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ