অপহরণ অতঃধর্ষণ সাবেক কাউন্সিলার লিটন সহ ৬ জন কে আসামী করে সদর মডেল থানায় মামলা গ্রেফতার ৬

প্রকাশিত: ৫:২৪ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৯, ২০২০

অপহরণ অতঃধর্ষণ সাবেক কাউন্সিলার লিটন সহ ৬ জন কে আসামী করে সদর মডেল থানায় মামলা গ্রেফতার ৬

 

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি

সুনামগঞ্জ সদর থানার জলিলপুর গ্রামে এক মহিলা কে গনধর্ষণের অভিযোগে ৬ জন কে আসামী করে মামলা দায়ের গ্রেফতার ৬ মঙ্গলবার রাতে এই গনধর্ষণের ঘটনাটি ঘটে বলে অভিযোগ সুত্রে জানাযায়। নির্যাতিতা মহিলার অভিযোগ সুত্রে জানাযায় গত মঙ্গলবার ঘটনার দিন তার ছেলে জাবেদ কে বিদেশ পাঠানোর জন্য টাকার প্রয়োজনে হওয়ায় পুর্বপরিচিত জলিলপুর গ্রামের মৃত রইছ উদ্দিনের ছেলে শাহাবুদ্দিনের কাছে কিছু টাকা ধার নিতে আসে সে এ সময় শাহাবুদ্দিন জলিলপুর গ্রামের মৃত সামছু মিয়ার ছেলে জুয়েল কে ডেকে আনে এবং ২০.০০০ বিশ হাজার টাকা ধার চায় এ সময় জুয়েল ব্ল্যাঙ্ক চেকে সাক্ষর সহ তার কাছে মরগেজ দিলে সে টাকা দিবে বলে জানায়। আলোচনার এক পর্যায়ে রাত হয়ে যাওয়ায় শাহাবুদ্দিনের বাড়িতে থাকার সিন্ধান্ত নেয় নির্যাতিত মহিলা। রাতে একসময় শাহাবুদ্দিনের বড় ভাই সুলতান মিয়ার ছেলে শাহজাহান শাহাবুদ্দিনের বাড়িতে এসে তার কাছে টাকা আছে কারো কাছ থেকে চেক দিয়ে টাকা নিতে হবেনা বলে জানায়। শাহজাহান তকন তার বাড়িতে যেতে নির্যাতিতা মহিলাকে বাধ্য করে এসময় শাহজাহানের সঙ্গে থাকা মৃত আকবর আলীর ছেলে আরমান,মৃত সামছু মিয়ার ছেলে জুয়েল,মৃত রইছউদ্দিনের ছেলে সামছুদ্দিন তাকে নৌকায় তুলে নাইন্দা বিলের পাশে একটি পরিত্যক্ত টিনসেট বিল্ডিংয়ে নিয়ে পর্যায় ক্রমে ধর্ষণ করে এক পর্যায়ে অসুস্ত হয়ে পড়লে নৌকায় করে তাকে মৃত ইদ্রীছ আলীর ছেলে সাবেক পৌর কাউন্সিলার জহুর মিয়া লিটনের কাছে রেকে তারা চলেযায়। তকন জহুর মিয়া লিটন ও মৃত আব্দুল হেকিমের ছেলে আনোয়ার তাকে সামছু মিয়ার দোকানের পিছনের টিনের ভাউন্ডারীর ভিতরে নিয়ে গিয়ে আবারো পর্যায়ক্রমে ধর্ষন করে বলে নির্যাতিতা মহিলার অভিযোগ সুত্রে জানাযায়। এ বিষয়ে সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি সহিদুর রহমান জানান এ বিষয়ে মামলা রুজু করা হয়েছে আসামীদের গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরন করা হয়েছে।সিরাজুল ইসলাম শ্যামল

এই সংবাদটি 651 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ